রাজধানীতে টয়লেট ভোগান্তিতে নারী ট্রাফিক পুলিশরা

0

আদিত্য রিমন: রোদ, বৃষ্টি, ঝড় মাথায় নিয়ে রাস্তায় প্রতি শিফটে টানা আট ঘণ্টা দায়িত্ব পালন করেন ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা। প্রতিদিন সকাল সাড়ে ছয়টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত দুই শিফটে রাজধানীতে ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণে পুরুষ পুলিশের পাশাপাশি দায়িত্ব পালন করেন নারী ট্রাফিক পুলিশরাও। তবে দায়িত্ব পালনকালে প্রায়ই টয়লেট সমস্যায় পড়েন তারা। জরুরি ভিত্তিতে এ সমস্যার উত্তরণ চান তারা। নারী ট্রাফিক পুলিশদের এ সমস্যার বিষয়টি স্বীকার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক বিভাগ। তারা বলছে, টয়লেট সমস্যা দূর করতে কাজ চলছে।

নারী ট্রাফিক পুলিশরা বলছেন, টানা আট ঘণ্টা রাস্তায় ডিউটি করতে হয়। এ সময় কম করে তিন বার টয়লেটে যেতে হয়। কিন্তু রাস্তায় ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণের কাজে নিয়োজিত পুলিশের জন্য টয়লেটের কোনও সুব্যবস্থা নেই। সরকারি অফিস, মার্কেট বা কারও বাড়িতে গিয়ে টয়লেট ব্যবহার করতে হয়। রাতের বেলায় এ সুযোগ থাকে না। কারণ, বিকাল চারটার পর সরকারি অফিস, রাত আটটার পর মার্কেটগুলো বন্ধ হয়ে যায়। তখন আরও বেশি সমস্যায় পড়েন নারী ট্রাফিক পুলিশরা। আবার কেউ কেউ  লজ্জার কারণে এসব টয়লেট ব্যবহার করেন না। তারা টানা আট ঘণ্টা ডিউটি শেষে বাসায় ফিরে গিয়ে টয়লেট ব্যবহার করেন।

চিকিৎসকরা বলছেন, একজন সুস্থ মানুষ আট ঘণ্টায় কমপক্ষে দুই থেকে তিন বার টয়লেট ব্যবহার করেন। আর অসুস্থ হলে আরও বেশি টয়লেটে যেতে পারেন।  শীতকালের তুলনায় গরমকালে এটা আরও বেশি হতে পারে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ বলেন, ‘সুস্থ ব্যক্তির জন্য একরকম, আর অসুস্থ ব্যক্তির ক্ষেত্রে আরেক রকমের বাথরুম ব্যবহারের প্রয়োজন হতে পারে। তবে একজন সুস্থ মানুষ আট ঘণ্টায় সাধারণত দুই থেকে তিন বার বাথরুম ব্যবহার করেন।’

রাজধানীর কাকরাইল মসজিদের মোড়ে কর্তব্যরত  নারী সার্জেন্ট কাজল রেখা-২ এর  সঙ্গে কথা হয়। তার  গ্রামের বাড়ি রাজশাহীতে। ডিএমপিতে কাজল রেখা নামে আরও একজন নারী সার্জেন্ট থাকায় তার নামের শেষে অফিসিয়ালি ‘২’ যুক্ত করা হয়েছে। তিনি জানান, রাস্তায় দায়িত্ব পালনের সময় পাশের জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল ভবনের টয়লেট ব্যবহার করতে হয় তাদের। সন্ধ্যার পরে এই সরকারি অফিসটি বন্ধ থাকে। তখন টয়লেটের সমস্যায় পড়েন তারা। তিনি আরও জানান, জরুরি ভিত্তিতে এই সমস্যার সমাধান হওয়া দরকার

Share.
মন্তব্য লিখুনঃ

 

',