নাম-যশ থাকলে হতাশা থাকবে না, এই ধারণা ভাঙতে হবে: মিমি


Admin   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ১৫ জুন, ২০২০

জনপ্রিয় তরুণ অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুতে বিনোদন অঙ্গনে এখন শোকের ছায়া। সহশিল্পী ও বিভিন্ন অঙ্গনের জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পীরাও বিষয়টি নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেছেন। জানা যাচ্ছে, মুম্বাইয়ের বান্দ্রায় নিজের বাড়িতে আত্মহত্যা করেছেন জনপ্রিয় এই অভিনেতা। রোববার (১৪ জুন) সকালে বাড়ি থেকে তার দেহ উদ্ধার করা হয়। এই অবিশ্বাস্য দুঃসংবাদে দিশেহারা বিনোদন জগৎ। ভারতীয় পুলিশ জানিয়েছে, হতাশার চিকিৎসা চলছিল সুশান্তের। তার ঘরে পুলিশ প্রাথমিক তদন্তে এমন প্রেসক্রিপশন ও ওষুধ পেয়েছে বলে জানা গেছে। যদিও কোনও সুইসাইড নোট এখনও পাওয়া যায়নি।

বিষয়টি নিয়ে টালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী বলেন, নাম-যশ থাকলে অবসাদ হতে পারে না, এই ধারণা ভাঙতে হবে। মানসিক অবসাদ ক্যান্সারের মতোই মারণ রোগ যার কোনো প্রতিকার নেই।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেষ ইনস্টাগ্রাম পোস্টে সুশান্ত লিখেছেন, ‘চোখের জলে আবছা হয়েছে অতীত, ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে মুখে ফুটছে হাসি, আর জীবন যেন এই ভবিষ্যৎ ও অতীতের দোলাচলে কাটছে…মা’। ২০০২ সালে মাকে হারিয়েছিলেন সুশান্ত।

১৯৮৬ সালের ২১ জানুয়ারি পাটনায় জন্মগ্রহণ করেন সুশান্ত সিং রাজপুত। পরবর্তীকালে দিল্লিতে চলে যায় তার পরিবার। দিল্লি কলেজ অব ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়েও ভর্তি হন। কিন্তু সেইসময় থেকেই থিয়েটারের দিকে ঝোঁকেন তিনি। নাচও শেখেন। তার জন্য পড়াশোনা শেষ করতে পারেননি।বলিউডে ছিল সুশান্তের শক্ত অবস্থান। শেষবার ‘ছিছোড়ে’ ছবিতে দেখা গিয়েছিল সুশান্তকে। এছাড়া ‘কেদরনাথ’, ‘এম.এস. ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’, ‘ডিটেকটিভ ব্যোমকেশ বক্সী’, ‘পিকে’, ‘কাই পো চে’ সহ একাধিক ছবিতে অভিনয় করেছেন সুশান্ত। টেলিভিশনে ‘পবিত্র রিস্তা’ ধারাবাহিক দিয়ে কেরিয়ারে প্রথম সাফল্যের মুখ দেখেন সুশান্ত।