মাল্টা চুরির অপরাধে তিন শিশুকে গাছে বেঁধে নির্যাতন


Admin   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ১৫ জুন, ২০২০

পিরোজপুরের নেছারাবাদে মাল্টা চুরির অপরাধে তিন শিশুকে গাছে বেঁধে জুতা পেটা করে নির্যাতন করা হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার (১৩ জুন)  সকালে উপজেলার বলদিয়া ইউনিয়নের চামি গ্রামে। আর  শিশুদের নির্যাতনের অভিযোগে বাগান মালিক ও তার ছেলেকে শনিবার (১৩ জুন) সন্ধ্যায় আটক করেছে থানা পুলিশ।  জানা গেছে, ওই মাল্টা বাগানের মালিক ওই ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের আব্দুল জব্বার মিয়া।
ওই তিন শিশুর নির্যাতনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। পরে ওই দিন সন্ধ্যায় থানা পুলিশ বাগান মালিক জব্বার মিয়া (৫০) ও তার ছেলে মো. হাসানকে (২২) কে  গ্রেপ্তার করেন। নির্যাতিত শিশুরা হলো- স্বাধীন (১২), নাহিদ (১১), ও তাওহীদ (১১)। তাদের প্রত্যেকের বাড়ি চামি গ্রামে।  তারা জানায়, ওই দিন সকালে তাদের ক্ষুধা পেলে  ওই বাগানে গিয়ে একটি মাল্টা ছিঁড়ে খাচ্ছিল। এ সময় ওই বাগান মালিকের ছেলে তাদের তিনজনকে ধরে গাছের সাথে বেঁধে প্রথমে মার-ধর ও পরে জুতা পেটা করে। স্থানীয়রা জানান, ওই তিন শিশু স্থানীয় একটি মুরগীর ফার্মে কাজ করে। সকালে তারা ওই বাগানে গিয়ে মাল্টা খায়। এ ঘটনায় ওই তিন শিশুকে আটক করে তাদের গাছের সাথে বেঁধে জুতা পেটা করে নির্যাতন করা হয়। এ ঘটনায় মাল্টা বাগান মালিক জব্বার মিয়া ওই শিশুদের মার-ধরের কথা আংশিক স্বীকার করে জানান, তিনি গত ৩ বছর ধরে মাল্টা বাগান করে আসছেন। শনিবার সকালে  ৩ শিশু বাগানে ঢুকে মাল্টা চুরি করে। তাই রাগের মাথায় তাদের ধরে গাছের সাথে বেঁধে জুতা দিয়ে পেটা দেয়া হয়েছে। এর বেশি কিছু ঘটেনি। নেছারাবাদ থানা ওসি খন্দকার কামরুল ইসলাম তালুকদার জানান, এ অভিযোগে ওই বাগান মালিক ও তার ছেলেকে আটক করা হয়েছে।