শ্রীপুরে কিশোর নাঈমের মাদকদ্রব্য কেনাবেচায় বাঁধা দিলেই নির্যাতন


Admin   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ৫ অক্টোবর, ২০২০

গাজীপুরের শ্রীপুর পৌর এলাকার উজিলাব গ্রামের সালাউদ্দিনের সন্তান সাখাওয়াত হোসেন নাঈম (২২)। সে এলাকার কিশোর-তরুণদের নষ্ট করার প্রধান হাতিয়ার। স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের হাতে মাদক তুলে দেওয়া পরবর্তীতে তাদের দ্বারা সুকৌশলে মাদক বিক্রি করানো তার নেশা।

মাদকদ্রব্য কেনাবেচায় বাঁধা কিংবা প্রতিবাদ করলে পুলিশ দ্বারা হয়রানিসহ বিভিন্ন প্রকার হুমকি-ধামকি এমন কি মারধর করার অভিযোগ রয়েছে নাঈম এর বিরুদ্ধে। এলাকার সিংহভাগ মানুষ এখন তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ।

ওই এলাকার আব্দুল মজিদ নামের এক ব্যক্তি তার স্কুলপড়ুয়া সন্তানকে বাধ্য হয়ে স্থানীয় একটি জুতার কারখানায় চাকরি নিয়ে দিয়েছে। তিনি জানান, আমার সন্তান রাফি খান সে আলহাজ্ব নওয়াব আলী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্র। তাকে নাঈম বিভিন্ন সময় হুমকি-ধামকি দিয়ে মাদকদ্রব্য ইয়াবা বিক্রি করিয়েছি। বিষয়টি আমি জানতে পেরে আমার সন্তানকে সংশোধনের জন্য চাকরিতে পাঠিয়ে দিয়েছি‌। করোনা পরিস্থিতিতে স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকায় বেপরোয়া হয়ে উঠেছে নাঈম। পরবর্তীতে তার বাবা সেলার কাছে বিষয়টি জানালে তিনি কোনো গুরুত্ব দেননি বরং আমাদেরকে উল্টাপাল্টা শাসিয়েছে। সন্তানের নিরাপত্তা ও মাদক ব্যবসায়ী নাঈমের বিচার চেয়ে গাজীপুরের পোড়াবাড়ী র্যাব কার্যালয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন মজিদ খান।

অপরদিকে একই এলাকার আব্দুস ছামাদের বোন মিনারা খাতুনের বাড়ির পাশে নির্জন আকাশি বাগানে মাদকদ্রব্য কেনাবেচা করে নাঈম। ওই মাদকদ্রব্য কেনাবেচায় নিষেধ করায় মিনারা খাতুন ও তার বৃদ্ধা মাকে মারধর করার অভিযোগে গাজীপুরের পোড়াবাড়ী র্যাব -১ কার্যালয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন আব্দুস ছামাদ। তিনি জানান, ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রি করতে নিষেধ করায় আমার বৃদ্ধা মাকে রাস্তায় একা পেয়ে মারধর করেছে। পরবর্তীতে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা করেছি। ইতিপূর্বে শ্রীপুর থানা পুলিশ নাঈমকে একাধিক ধৃত করলেও কোনো এক অজ্ঞাত কারণে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার টেংরাবাজার, উজিলাব, সুতাপাড়া, সাতখামাইর, টেপিরবাড়ী সহ আশেপাশের এলাকা প্রতিদিন তরুণ, কিশোর, বিভিন্ন স্কুল কলেজে পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা মাদকের জন্য ছুটে আসে নাঈম এর কাছে। সন্ধ্যা হলেই এলাকার নির্জন জায়গা বেছে নেয় মাদক কেনাবেচার জন্য। চারপাশে বেষ্টিত থাকে কিছু কিশোর যারা কে আসা-যাওয়া করছে তার তথ্য পৌঁছে দেয় নাঈম এর কাছে। মাদক মুক্ত এলাকা ও তরুণ কিশোর যুবসমাজ রক্ষা করার জন্য খুব শীঘ্রই সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে বিচারের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে র‌্যাব-১ গাজীপুর পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার লে. কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুনের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করেও পাওয়া যায়নি, তাই প্রতিবেদনে তার বক্তব্য দেওয়া সম্ভব হয়নি।