সাংবাদিক রোজিনার মুক্তির দাবিতে গাজীপুরে মানববন্ধন, বিক্ষোভ ও স্মারকলিপি প্রদান


Admin   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ১৯ মে, ২০২১

প্রতিনিধি গাজীপুর:

সচিবালয়ে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা ও দীর্ঘ সময় আটকে রেখে সাজানো মামলায় জড়ানোর প্রতিবাদে মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও স্বারকলিপি দিয়েছে শ্রীপুরে কর্মরত তিন সাংবাদিক সংগঠনের সাংবাদিকেরা। বুধবার সকাল সাড়ে ১০ টায় এসব কর্মসূচী শেষে শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাসলিমা মোস্তারির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্বারকলিপি প্রদান করে সাংবাদিকেরা।

শ্রীপুর রিপোর্টার্স ইউনিটি, শ্রীপুর উপজেলা সাংবাদিক সমিতি এবং শ্রীপুর প্রেসক্লাবের যৌথ আয়োজনে মুক্তিযোদ্ধা সংদস কার্যালয়ের ‘স্মৃতিসৌধ-শ্রীপুর’ বেদিতে মানববন্ধন, শ্রীপুর পৌর শহরের প্রধান সড়কে বিক্ষোভ মিছিল ও ইউএনও বরাবর স্বারকলিপি প্রদান করে।

শ্রীপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি প্রবীণ সাংবাদিক আলমগীর হোসেনের (আলোকিত প্রতিদিন) সভাপতিত্বে ও শ্রীপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী আকতার হোসেনের (ভোরের ডাক) পরিচালনায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল শেষে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন শ্রীপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি প্রভাষক আবু বকর সিদ্দিক আকন্দ (ডেইলী স্টার), বশির আহমেদ কাজল (দিনকাল), সহ-সভাপতি আনিছুর রহমান শামীম (বাংলাদেশ জার্নাল), শ্রীপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান (বাংলাদেশ প্রতিদিন), সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুদ রানা (আমার সংবাদ), কোষাধ্যক্ষ মোক্তার হোসেন (আগামী নিউজ/গণমুক্তি), শ্রীপুর উপজেলা সাংবাদিক সমিতির সভাপতি রায়হানুল ইসলাম আকন্দ (বংলা ট্রিবিউন ও ঢাকা ট্রিবিউন), সাংগঠনিক সম্পাদক এমদাদুল হক (ভোরের দর্পণ), কোষাধ্যক্ষ সাইফুল আলম সুমন (আমার বার্তা), শ্রীপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির কোষাধ্যক্ষ সাদেক মিয়া (সবুজ নিশান,আলোকিত নিউজ),নাঈম মেহেদী (সকালের সময়), এস এম জহিরুল ইসলাম (আজকের বাংলা সংবাদ),বেলায়েত শেখ(জেটিভি),মোহাম্মদ শাহীন মন্ডল (দৈনিক দিন প্রতিদিন), রোকনুজ্জামান খান (যোগফল),নজরুল ইসলাম শেখ (আজকের সংবাদ), রাকিব হাসান আকন্দ (দৈনিক শিরোমনি), অ্যাডভোকেট হাবিবুর রহমান (স্বাধীন মত)।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, প্রশাসনযন্ত্রের সর্বোচ্চ স্থান হলো সচিবালয়। সেখানে একজন জ্যেষ্ঠ নারী সাংবাদিককে যেভাবে হেনস্তা করা হয়েছে, তা নজিরবিহীন ও ন্যক্কারজনক। প্রশাসনের গুটিকয়েক দুর্নীতিবাজের মুখোশ উন্মোচন করে রোজিনা ইসলাম যে হেনস্তার শিকার হয়েছেন, তাতে তাঁর তৈরি করা অনুসন্ধানী প্রতিবেদনগুলো যে সঠিক ছিল, সেটিই প্রমাণিত হয়েছে।

বক্তারা আরো বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছে। সেই দুর্নীতির খবর প্রকাশ করে সাংবাদিক রোজিনা এ দেশের জনগণের উপকার করেছেন। সচিবালয়ের মতো একটি জায়গায় একজন সাংবাদিকের সঙ্গে এমন ব্যবহারের কারণে দেশের সাংবাদিকেরা উদ্বিগ্ন, ক্ষুব্দ ও বিস্মিতি। তার সাথে যে আচরণ করা হয়েছে তা ন্যাক্কারজনক। রোজিনার মুক্তির দাবি শুধু সাংবাদিকদের দাবি নয়, গণমানুষের দাবি হয়ে দাঁড়িয়েছে।

স্বারকলিপিতে রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা করার ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান ও পেশাগত দায়িত্বপালনে সব সাংবাদিকের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানানো হয়।